রাজশাহীতে উপজেলা নির্বাচন বাতিলের দাবি ওয়ার্কার্স পার্টির

রাজশাহী লীড

স্টাফ রিপোর্টার: প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচনে রাজশাহীর তানোরে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি রাজশাহী জেলা ও মহানগর নেতৃবৃন্দ। সোমবার বেলা ১২টায় ওয়ার্কার্স পার্টির দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ দাবি জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আশরাফুল হক তোতা। তিনি বলেন, প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচনে তানোরে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান ওয়ার্কার্স পার্টি থেকে নির্বাচন করা হয়েছে।

এই নির্বাচনে হাতুড়ি প্রতিক নিয়ে শরিফুল ইসলাম চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন। তিনি প্রথম থেকেই ভোটে এগিয়ে থাকেন। আমাদের প্রার্থী শরিফুল ইসলাম বড় ধরনের ভোটে এগিয়ে ছিলেন। প্রতিপক্ষের পরাজয় নিশ্চিত হলে তারা কলমা ইউনিয়নের ভোটের কারচুপির মাধ্যমে হারানো হয়েছে।

তানোরে সুষ্ঠু নির্বাচনে হলেও শেষ মুহুর্তে ফলাফলের সময় নৌকা প্রতিকের কর্মিরা নির্দিষ্ট ভোটের মাপযোগ ও ফলাফল ঘোষণা দিয়ে প্রিজাইডিং অফিসারের কাছে পাঠানো হয়। প্রিজাইডিং অফিসারদের জিম্মি করে হাতুড়ি প্রতিকের এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

তোতা বলেন, নৌকা প্রতিকের প্রার্থী লুৎফর হায়দার রশি ময়না নিজে বলেন ‘আমি কলমা ইউনিয়নের সেন্টারগুলোতে কত ভোট পেলে পাস করবো।’ সে হিসেব করে ফলাফল তৈরি করে সহকারি প্রিজাইডিং অফিসারের কাছে নিয়ে গিয়ে ৩৫৪ ভোটের ব্যবধান দেখিয়ে পরাজিত করানো হয়।

এছাড়াও ভোটে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ভোট কারচুপির সাথে জড়িত ছিলো অভিযোগ করেন তিনি। নির্বাচনে নিয়োজিত আনসার সদস্যদের নৌকাতে সিল মারার একটি ভিডিও দেখান তিনি।

তোতা বলেন, ভোটের পরপর তানোরে হাতুড়ি প্রতিকের পক্ষের কর্মিদের ওপর হামলা, লুট, ঘরবাড়ি ভাঙচুর মাছ লুটসহ নানা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। স্থানীয় আদিবাসী ও সংখ্যালঘু মানুষদের ওপর অমানবিক নির্যাতন চালাচ্ছে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা। প্রশাসন এবিষয়ে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

লিখিত বক্তব্যে তানোরের মানুষদের শান্তিতে বসবাস হামলা, নির্যাতন না করার আহ্বান জানানো হয়। একই সাথে কারচুপি ভোট বাতিল করে আবার পূর্ণাঙ্গ ভোটের দাবি জানানো হয়। দাবি না মানলে বৃহত্তর আন্দোলের হুশিয়ারি দেয় ওয়ার্কার্স পার্টিও নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগরের সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, রাজশাহী মহানগর ছাত্র মৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক সম্রাট রায়হান, নবনর্বাচিত ওয়ার্কার্স পার্টির উপজেলা ভাইস চেয়ারমাম্যান আবু বাক্কার সিদ্দিকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপিস্থিত ছিলেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.