২০০ ঘণ্টা ইয়োগার রেকর্ড ৯ বছরের শিশুর

চারণ সংবাদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শরীর ফিট রাখতে অনেকেই শরীরচর্চা করেন। জিমে গিয়ে ব্যায়াম করতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন বেশিরভাগ মানুষ। তবে অনেকেই আছেন ইয়োগা করেন নিয়মিত। এটি যেমন আপনার শরীরের মেদ কমিয়ে ফিট রাখবে। তেমনি এর রয়েছে হাজারো উপকারিতা।

জয়েন্টের ব্যথা থেকে শুরু করে মনের অসুখ সব কিছুর জন্য দারুন কাজ করে ইয়োগা। তবে এবার ইয়োগা করে বিশ্বরেকর্ড করলেন রেয়ানশ সুরানি। ২০০ ঘণ্টা ইয়োগা করে নাম উঠিয়েছেন গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে, সেই রেকর্ডধারীর বয়স মাত্র ৯ বছর ২২০ দিন।

এর মধ্যেই এই খুদের ঝুলিতে যুক্ত হয়েছে গিনেস বুকের মতো একটি বিশ্বরেকর্ড। রেয়ানশ সুরানি ভারতীয় নাগরিক হলেও পরিবারের সঙ্গে বাস করছেন দুবাই। তিনিই বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ ইয়োগা ট্রেইনার।

শুধু রেকর্ড করেই পরিচিত নন তিনি। নিজের বাড়িতে রয়েছে একটি যোগাশন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। সেখানে প্রতিদিনই তার বাবা মায়ের বয়সী মানুষদের যোগাসন সেখান তিনি।

দুবাইতেই রেয়ানশয়ের জন্ম ও বেড়ে ওঠা। তার বাবা মা জানিয়েছেন, রেয়ানশয়ের বয়স যখন মাত্র ৪ বছর, তখন থেকেই সে প্রতিদিন যোগাসন করত। এইভাবে নিয়মিত চর্চা করতে করতে সে নিজেই তার স্কুলের প্রশিক্ষক হয়ে গিয়েছে।

২০২১ সালের ২৭ জুলাই রেয়ানশ তার ইয়োগা স্কুল আনন্দ শেখর যোগাসন স্কুল থেকে সার্টিফিকেট পান। এরপর ২০২২ সালের ১৯ ফেব্রয়ারি তার নাম ওঠে গিনেস বিশ্বরেকর্ডের খাতায়।

রেয়ানশের বাবা-মা প্রতিদিন একটি স্কুলে যোগাসন শিখতে যেতেন। তখন রেয়ানশও তার বাবা মায়ের সঙ্গে ওই স্কুলে যেত। সেখানে যেতে যেতেই রেয়ানশের যোগাসন নিয়ে আগ্রহ বাড়ে ও ক্রমে সে একজন যোগা প্রশিক্ষক হওয়ার ট্রেনিং নিতে শুরু করে।

এভাবে ইয়োগা করতে করতেই তার ২০০ ঘণ্টা শেষ হয় মাত্র ৯ বছর বয়সে। এরপর বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ যোগাশন প্রশিক্ষকের শিরোপা পায় সে।

স্ব.বা/ রু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *