সকালে বাবাকে মারপিটের পর সন্ধ্যায় ছেলেকে কুপিয়ে জখম

রাজশাহী লীড

বাঘা প্রতিনিধিঃ ভুট্টা ক্ষেতের পাতা ও ভুট্টা কাটতে বাঁধা দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে, সকালে মারধর মজিবর রহমানকে। যার প্রতিবাদ করতে গিয়ে সন্ধ্যায় চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও লাঠি,হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে মজিবর রহমানের ছেলে মোঃ পিপুলকে (৩৫)। এ ঘটনায় মোঃ পিপুল বাদি হয়ে ২১ জনের বিরুদ্ধে বাঘা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে নগদ টাকা, মোবাইল সেট এবং ফসলের মাঠ থেকে ভুট্টা কেটে নিয়ে যাওযার অভিযোগও করা হয়েছে। সোমবার (৩-৫-২০২১) পুলিশ জামাল মন্ডল নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে। ঘটনা ঘটেছে রাজশাহীর আড়ানী পৌর সভার গোচর গ্রামে।

 

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়,গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকাল ৬টায় মোঃ পিপুলের (মামলার বাদি) বাবা মুজিবুর রহমান তার ভুট্টার ক্ষেতে গিয়ে দেখেন, গরিব মন্ডল নিজেসহ তার দুই ছেলে শান্ত মন্ডল, আরিফ মন্ডল ও মোসলেমের দুই ছেলে রেজূল, জামাল, মাসুম,ও জামালের দুই ছেলে হৃদয় ও স্বপন ভুট্টার পাতা ও ভ’ট্টা কেটে বস্তায় ভর্তি করে মাথায় নিয়ে ভুট্টার ক্ষেত থেকে বের হয়ে যাচ্ছে। তারা মজিবরকে দেখে দ্রুত চলে যেতে থাকে। তাদের গতিরোধ করলে মুজিবর রহমানকে অল্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে শান্ত মন্ডল এর হাতে থাকা হাসুয়া দিয়ে মজিবরকে আঘাত করে। এতে মজিবরের ডান হাতের শাহাদত আঙুল কেটে রক্তাত্ত জখম হয়। ওই সময় শান্ত মন্ডল মজিবরের জামার বুক পকেটে থাকা ৯০০শত টাকা বের করে নেয় এবং ৫ বস্তা ভুট্টা নিয়ে চলে যায়। পরে চিকিৎসার জন্য বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন মজিবর।

এদিকে মারপিটের ঘটনা জানতে গিয়ে প্রতিপক্ষ জামাল মন্ডলের সাথে কথা কাটা কাটি হয়, আহত মজিবর রহমানের ছেলে মোঃ পিপুল এর। যার জের ধরে একই দিন সন্ধ্যা ছয়টায় মজিবরের ছেলে পিপুলকে চাপাতি, বাঁশের লাঠি দ্বারা শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারপিট করে ফোলা এবং রক্তাক্ত জখম করে। এই সুযোগে তার কাছে থাকা ৮৩ হাজার টাকা ও নোকিয়া মোবাইল ফোন জোরপূর্বক ছিনাইয়া নেয়। প্রাণ রক্ষার্থে ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী মানিকের বাড়ির রান্না ঘরে আশ্রয় নেয় মোঃ পিপুল। সেখানকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ব্যক্তিগত প্রয়োজনে জামনগরে বাজার থেকে বাড়িতে ফেরার পথে গোচর গ্রামের আশকান মন্ডল এর বাড়ির সামনে পাকা রাস্তায় পথরোধ করে পিপুলকে মারপিট ও কুপিয়ে জখম করা হয়। ঘটনায় পুরুষদের পাশাপাশি নারিরাও জড়িত ছিল বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। সকালে ও সন্ধ্যায় সংঘটিত ঘটনার প্রেক্ষিতে ২১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, মোঃ পিপুল বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় গোচর গ্রামের মৃত মসলেম মন্ডলের ছেলে জামাল মন্ডলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *