আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত রেলের যাত্রী ছাউনি সংস্কার করেনি কর্তৃপক্ষ

সারাদেশ

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: ছয় মাস আগে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে আছে যশোরের শার্শা উপজেলার নাভারণ রেল ষ্টেশনের যাত্রী ছাউনিটি। করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহতাকে কিছুটা জয় করে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলে আংশিক গতি ফিরলেও ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রী ছাউনিটি এখনও মেরামত করা হয়নি। ফলে সংস্কার না হওয়ায় রেলে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। প্রায় ছয় মাস সময় অতিবাহিত হলেও ক্ষতিগ্রস্ত রেলের যাত্রী ছাউনি অরক্ষিত অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে। নজরদারি থাকলেও সংস্কারে কর্তৃপক্ষের রয়েছে কিছুটা উদাসীনতা।

স্থানীয়রা জানান, চলতি বছরের ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ভয়াবহ প্রভাবে যাত্রী ছাউনির সামনে এবং পিছন অংশের টিন উল্টে পড়ে আছে। করোনাকালীন লকডাউন থাকায় মানুষের কর্মজীবন থমকে যায়। দীর্ঘদিন কাজ এবং রেল চলাচলের বিরতি কাটিয়ে সব কিছু স্বাভাবিক হলেও যাত্রী ছাউনিটি সংস্কার করা হচ্ছে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নাভারন রেল ষ্টেশনের একজন বুকিংম্যান বলেন, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের আগে নাভারণ রেল ষ্টেশন থেকে প্রতিমাসে টিকিট বিক্রি করে রেল কর্তৃপক্ষ আয় করত প্রায় পৌণে দুই লাখ টাকার মত। অথচ আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রী ছাউনিটি সংস্কারের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও কারো কোন নজর নেই।

রেলওয়ের আই ডব্লিউ কর্মকর্তা চাঁদ আহমেদ বলেন, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ভয়াবহ প্রভাবে নাভারণ রেল ষ্টেশনের যাত্রী ছাউনির সামনে এবং পিছন অংশের টিন উল্টে পড়ে আছে। রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন। করোনা পরিস্থিতিতে একটু বিলম্ব হয়েছে। দ্রুত সংস্করণ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন। আশা করছি,কাজ শুরু হবে এবং রেলে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ লাঘব হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *