বিএনপির আমলে দেশে বন্দুকতন্ত্র ছিলো : আইনমন্ত্রী

সারাদেশ

স্বদেশবাণী ডেস্ক: আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপি বলেছেন, বিএনপি যারা করেন তারা বলেন  দেশে গণতন্ত্র নাই, কিন্তু তাদের সময়ে তো দেশে ছিলো বন্দুকতন্ত্র। আপনারা গণতন্ত্রের মানেই বুঝেন না। আপনাদের সময় মানুষ খুন হতো, খুনীরা হেঁটে বেড়াতো। আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাসী করি বলেই আপনারা কথা বলতে পারছেন।

সোমবার (৪ জানুয়ারি) বিকেলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় ভার্চুয়ালী অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপি বলেন, ১৯৪৮ সালে বঙ্গবন্ধু যখন বুঝতে পারেন পাকিস্তানের স্বাধীনতা বাংলাদেশের মানুষের ভবিষ্যত পরিবর্তন করবে না। তারা শাসক হবে, বন্ধু হবে না। তখন বঙ্গবন্ধু দুইটা ধারা চালু করেন। একটা ছাত্র-যুবক চাহিদা তৈরি করা, আরেকটা ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য রাজনৈতিক দল।

তিনি জীবন দিয়ে প্রমাণ করে গেছেন সেটাই ভাগ্য পরিবর্তনের পথ। রাজমিস্ত্রী যেমন বাড়ি বানাতে একটা একটা ইট গুণেন, সেভাবেই ছাত্রলীগকে গড়ে গেছেন বঙ্গবন্ধু। ছাত্রলীগকে যোদ্ধা বানিয়েছেন। লেখাপড়া করতে বলেছেন, তেমনি শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতেও শিখিয়েছেন বলে উল্লেখ করেন আইনমন্ত্রী।

আইনমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জনগণের সাথে বঙ্গবন্ধু এতটাই সম্পৃক্ত ছিলেন, কেউ তাঁকে দাবায়ে রাখতে পারে নাই। তিনি প্রমাণ করে গেছেন, বাঙালিকে কেউ দমায়ে রাখতে পারে না। ১৫ আগস্ট যদি বঙ্গবন্ধুকে হত্যা না করা হতো, তাহলে বাংলাদেশের ছবি অন্যরকম হতো। আমরা ভাগ্যবান সেই কালোরাত্রে দুই বোন (শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা) দেশে না থাকায় প্রাণে রক্ষা পান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু তৈরি করেছেন জনগণের টাকায়। ভিক্ষা আনেননি, ঋণ নেননি। বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোড মডেল হিসেবে তৈরি করেছেন। সোনার বাংলা গড়ার পথে এগিয়ে যাচ্ছেন। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন দেখাচ্ছেন।

আইনমন্ত্রী ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদেরকে উদ্দেশ্য করে বলেন, যারা ছাত্রলীগ করেন পড়াশুনা করবেন। আপনাদেরকে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য তৈরি হতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে প্রস্তুত থাকতে হবে। জননেত্রী শেখ হাসিনা যে বাংলাদেশ উপহার দিয়ে যাবেন আপনাদেরকে সেই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আফজাল হোসেন রিমনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম আহবায়ক আশরাফুল ইসলামের পরিচালনায় কসবা আদর্শ উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কসবা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাওছার ভূইয়া জীবন, পৌর মেয়র এমরান উদ্দিন জুয়েল, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এমএ আজিজ ও উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক কাজী মানিক প্রমুখ।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *