দলে মতপার্থক্য থাকতে পারে, তবে আদর্শ অভিন্ন : মন্ত্রী তাজুল ইসলাম

সারাদেশ

স্বদেশবাণী ডেস্ক: আওয়ামী লীগ স্বাধীনতার নেতৃত্বদানকারী একটি দল, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়ে উঠা দল। দলটিতে সকল পেশাজীবী মানুষের অংশগ্রহণ আছে। দলে নেতাকর্মীদের মধ্যে মতপার্থক্য কিছু থাকতে পারে কিন্তু রাজনৈতিক আদর্শ অভিন্ন বলে উল্লেখ করেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে ঐতিহাসিক মুজিবনগরে যে পথে ভারত থেকে এসে জাতীয় চার নেতাসহ জাতীয় নেতৃবৃন্দ ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল শপথ গ্রহণ করেছিলেন, ‘স্বাধীনতা সড়ক’ নামের ওই সড়কটি পরিদর্শনে গিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, ঢাকার দায়িত্ব পালনকারী সাবেক ও বর্তমান দুই মেয়রের রাজনৈতিক আদর্শ অভিন্ন। কর্ম সম্পাদনে কোথাও কোথাও মত পার্থক্য আছে। যা প্রকাশ্যে আলোচনা হয়েছে।  এতে দলের জন্য অকল্যাণকর কিছু নেই। আওয়ামী লীগ একটি গণতান্ত্রিক দল, সকলের বলার অধিকার আছে। তাদের মধ্যে যে মতপার্থক্য তৈরি হয়েছে, আমি মনে করি সময়ের ব্যবধানে তা ঠিক হয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ঐতিহাসিক মুজিবনগরের সড়কটি ‘স্বাধীনতা সড়ক’ হিসাবে রূপলাভ করতে যাচ্ছে। এখান দিয়ে একটি চেক পোস্টও করা হবে। যার মাধ্যমে দুই দেশের মানুষ যাতায়াত করতে পারবে। ফলে দুই দেশের মানুষের সহজ যাতায়াত ব্যবস্থার সঙ্গে পারস্পরিক সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।

এ সময় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতিতে মুজিবনগরে এক হাজার কোটি টাকার কাজ হবে। এর নকশাও প্রায় চূড়ান্ত। খুব দ্রুত এটি একনেকে তোলা হবে। আশা করা যায়, আগামী অর্থবছরে কাজ শুরু হবে এবং ২০২৩ সালের মধ্যে সকল কাজ শেষ করা হবে। মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক স্থানটি আন্তর্জাতিক মানের পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে গড়ে তুলতে সকল পরিকল্পনা শেষ হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আজ সকাল সাড়ে এগারটার দিকে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনসহ প্রকল্প বাস্তবায়নের কর্মকর্তারা ঐতিহাসিক মুজিবনগরের স্বাধীনতা সড়ক পরিদর্শনে গিয়ে প্রথমেই মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে স্বাধীনতা সড়ক পরিদর্শন শেষে মুজিবনগর পর্যটন মোটেলে বৈঠক করেন।

স্বাধীনতা সড়ক পরিদর্শনের সময় মেহেরপুর-২ গাংনী আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন, জেলা প্রশাসক ড. মোঃ মুনসুর আলম খান, পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী, পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *