নিখোঁজের ১৩ বছর পর ভারত থেকে ফিরলেন তারা

সারাদেশ

স্বদেশবাণী ডেস্ক: হারিয়ে যাওয়ার ১৩ বছর পর শায়েস্তারা বেগম নামে এক নারী এবং ৮ বছর পর সমীর মজুমদার নামে এক পুরুষ ফিরে পেল নিজ পরিবার।

শুক্রবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে ত্রিপুরার আগরতলায় বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনার ও আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজ নিজ পরিবারের কাছে তাদের হস্তান্তর করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিটগর ইউনিয়নের গুড়িগ্রাম থেকে ২০০৮ সালের জানুয়ারিতে মানসিক ভারসাম্যহীন শায়েস্তারা বেগম হারিয়ে যান। অন্যদিকে ২০১৩ সালের ২৪ অক্টোবর ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ঝুমারকান্দা গ্রাম থেকে হারিয়ে যান মানসিক ভারসাম্যহীন সমীর মজুমদার।

দুই বছর আগে মানবাধিকার কর্মী খাইরুল কবীরের মাধ্যমে তাদের পরিবার খোঁজ পায় পাশের দেশ ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের একটি মানসিক হাসপাতাল চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই দুজন এবং সুস্থ আছেন। তারা বাড়িতে ফিরতে চান।

এ নিয়ে দুই দেশের সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরে চিঠি চালাচালির দীর্ঘ ১৩ বছর এবং ৮ বছর পর সীমান্ত পেরিয়ে শুক্রবার আপনালয়ে ফিরেছেন শায়েস্তারা বেগম ও সমীর মজুমদার।

সমীর মজুমদারের ছোটভাই অমির মজুমদার অসিম বলেন, নিখোঁজ হওয়ার পর অনেক জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তারপরও আশা ছাড়েননি তারা। মাঝে মধ্যে নানান স্থানে খুঁজতেন তাদের। হারিয়ে যাওয়া স্বজনদের বুকে পেয়ে খুশি উভয় পরিবার।

ভারতের ত্রিপুরার আগরতলায় বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনার জোনায়েদ হোসেন বলেন, চিকিৎসা শেষে সুস্থ হওয়ায় ত্রিপুরার বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের সহায়তায় শুক্রবার দুপুরে নিজ দেশে তাদের ফেরত পাঠানো হয়।

এ সময় নো-ম্যান্স ল্যান্ডে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর-এ আলম, আখাউড়া বিজিবি কোম্পানি কমান্ডার জাহাঙ্গীর আলম, ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা মুর্শেদুল হক এবং ত্রিপুরার বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনার জোনায়েদ হোসেন ছাড়াও সহকারী কমিশনের প্রথম সচিব (স্থানীয়) এসএম আসাদুজ্জামান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. আশিকুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *