বিনম্র শ্রদ্ধায় রাজশাহীতে বিজয় দিবস উদযাপন

রাজশাহী লীড

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার শপথ গ্রহণ ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে রোববার সূর্যোদয়ের পর থেকে রাজশাহীতে পালিত হচ্ছে মহান বিজয় দিবস।

এর আগে রাত ১২টা ১ মিনিটে রাজশাহী পুলিশ লাইনে ২১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা হয়। বিজয়ের ৪২ বছর পূর্তি ও মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) ও জেলা প্রশাসন ছাড়াও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় পার্টি জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলসহ (জাসদ) বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন এসব কর্মসূচি পালন করছে।

রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে সিটি মেয়র ও আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে দলের নেতকর্মীরা পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সহসভাপতি শফিকুর রহমান বাদশা, মীর ইকবাল, উপ-প্রচার সম্পাদক মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন উপস্থিত ছিলেন। সকালে মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নগরীতে বিজয় র‌্যালী বের করা হয়।

এছাড়াও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় সাবেক সিটি মেয়র ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনসহ দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরেই বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে রাজশাহী মহানগরীর ভুবন মোহন পার্কে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সেখানে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

শ্দ্ধা নিবেদনের সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, জাসদের সভাপতি প্রদীপ মৃধা, সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাজী শাহেদ, সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এছাড়াও রাত ১২টা এক মিনিটে মহানগরীর রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনার, রাজশাহী কোর্ট শহীদ মিনার, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারসহ অন্য শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করে বিভিন্ন সংগঠন।

এদিকে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে নগর ভবন, বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়সহ বিভিন্ন সরকারি-বেরসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে।

এছাড়া মহানগরীর বিভিন্ন সড়ক, সড়ক দ্বীপসমূহ রঙ-বেরঙের পতাকা সজ্জিত ও আলোকসজ্জা করা হয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.