কাটাখালী পৌরসভার সাময়িক বরখাস্ত মেয়র আব্বাসের জামিন নামঞ্জুর

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টার: বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে কটূক্তির মামলায় রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার সাময়িক বরখাস্ত মেয়র আব্বাস আলীর জামিন নামঞ্জুর হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজশাহী বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালে তার জামিনের আবেদন করা হয়েছিল। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক মো. জিয়াউর রহমান জামিন আবেদন নাকচ করে দেন। আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ইসমত আরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সাপ্রতি আদালতে মামলাটির অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। এরপর বিচারের জন্য মামলাটি বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালে এসেছে। এ মামলার পরবর্তী ধার্য্য তারিখ আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি। তবে তার আগেই আদালতে নথি উপস্থাপন করে আসামির জামিন আবেদন করা হয়েছিল।

আসামি আব্বাস আলীর আইনজীবী পারভেজ তৌফিক জাহিদী বলেন, তার মক্কেল জামিন পাওয়ার হকদার। তবে আদালত জামিন দেননি। পরবর্তী তারিখে আবার জামিনের আবেদন জানানো হবে।

এদিকে জামিন শুনানির সময় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ইসমত আরা ছাড়াও বাদীপক্ষের আইনজীবী আসলাম সরকার ও মুসাব্বিরুল ইসলাম জামিনের বিরোধিতা করে বক্তব্য দেন। এই জামিন শুনানির জন্য আসামিকে আদালতে নেওয়া হয়নি বলেও জানান আইনজীবী ইসমত আরা।

উল্লেখ্য, আব্বাস আলী পরপর দুবার নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে মেয়র হন। ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক পদেও। গত নভেম্বরে তার দুটি অডিও রেকর্ড ভাইরাল হয়। এতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল করলে ‘পাপ হবে’- এমন মন্তব্য করতে শোনা যায় তাকে। আরেকটিতে সিটি মেয়র ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন সম্পর্কেও আপত্তিকর কথাবার্তা বলেন আব্বাস আলী। এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে নগরীর বোয়ালিয়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক আব্দুল মোমিন। এরপর ১ ডিসেম্বর ঢাকায় র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হন আব্বাস।

এরই মধ্যে তাকে আওয়ামী লীগের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। গ্রেফতারের পর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় আব্বাস আলীকে মেয়রের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে। গ্রেফতারের পর তাকে তিন দিনের রিমান্ডেও নিয়েছিল পুলিশ। ৯ ডিসেম্বর রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *