বর্ষায় বাইকের যত্ন

তথ্যপ্রযুক্তি

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: বর্তমানে যানজটের কারণে নির্দিষ্ট সময়ে কোথাও পৌঁছানো যেন অসম্ভব এক সত্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়িতে বসে থেকে যেমন ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছেন তেমনি সময়ের অপচয়ও হচ্ছে অনেক। এ কারণে নারী-পুরুষ সবার কাছেই দুই চাকার বাহনগুলো বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

দামও সাধ্যের মধ্যে থাকায় ব্যবহার বাড়ছে। এছাড়া যারা হুটহাট পাহাড় কিংবা সমুদ্রে ছুটে যেতে চান তাদের জন্য দুই চাকার এই যান প্রথম পছন্দ। তবে বাইক কেনার পর আপনাকে নিয়মিত যত্নও নিতে হবে। তাহলে বাইক দীর্ঘদিন আপনাকে ভালো সার্ভিস দেবে।

এদিকে বর্ষার মৌসুম হাজির। অনেকেই আছেন যাদের কাজের জন্য রোজই বাইক নিয়ে বেরোতে হয়। বৃষ্টিতেও বাইক চালাতে হয়। তাদের কয়েকটি ব্যাপার মাথায় রাখা উচিত। আবার বর্ষা মৌসুমে বাইকের যত্ন নিতে হবে অনেক বেশি। একবার বাইকের ইঞ্জিন বা সাইলেন্সরে পানি ঢুকে গেলে আপনাকে পোহাতে হবে নানা ঝামেলা।

চলুন জেনে নেওয়া যাক এসময় বাইকের যত্ন নেবেন যেভাবে-
> অনেকেই মনে করেন বর্ষায় গাড়ি সার্ভিস করিয়ে লাভ নেই। বর্ষা শেষ হওয়ার পর একেবারে সার্ভিসিং করিয়ে নেবেন। কিন্তু ততদিনে যা ক্ষতি হওয়ার তা হয়েই যাবে। বর্ষার পানি কাদা জমে যেতে পারে গাড়ির নিচের দিকের বিভিন্ন অংশে। এর ফলে গাড়ির ক্ষতি হয়। চেষ্টা করুন গাড়ি নিয়মিত সার্ভিস করানোর। পারলে নিজেই মুছে পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন।

> একে বর্ষা তার উপর রাস্তার করুণ হাল। পিচ্ছিল রাস্তায় যে কোনো সময় পিছলে যেতে পারে গাড়ির চাকা। তাই নিয়মিত খেয়াল রাখুন টায়ারের অবস্থার দিকে। পুরোনো টায়ার নিয়মিত বদল করুন।

> টায়ারের পাশাপাশি নজর রাখুন ব্রেকের দিকেও। ভেজা রাস্তায় ব্রেকের কার্যকারিতা কমে যায়। তাই বাইক বা গাড়ির ব্রেক নিয়মিত পরীক্ষা করুন। নির্দিষ্ট সময় অন্তর ব্রেক শু বদল করুন।

> বর্ষায় বাইকের চেনের দিকেও খেয়াল রাখুন। খেয়াল রাখুন যাতে বাইকের চেনে কাদা জমে না থাকে। নিয়মিত লুব্রিকেট করুন চেন।

> জল-কাদা ও বাতাসের অতিরিক্ত আর্দ্রতার কারণে বর্ষায় বাইকের এয়ার ফিল্টার বøক হয়ে যেতে পারে। চেষ্টা করুন ফিল্টারটি শুকনো ও পরিষ্কার রাখার।আপনার বাইক বা গাড়ি যতটা সম্ভব বৃষ্টি থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করুন। খোলায় জায়গায় পার্কিং করা এড়িয়ে চলুন।

বর্ষায় রাস্তাঘাটের অবস্থা এমনিতেই খারাপ থাকে। তার উপর যদি আলোর অভাবে রাস্তা দেখাই না যায়, তা হলে তা দ্বিগুণ বিপদজনক হয়ে যায়। তাই বের হওয়ার আগে দেখে নিন গাড়ির সব লাইট ঠিকঠাক কাজ করছে কিনা।

বিপদ কখনো বলে আসে না। তাই সবরকম সাবধানতা সত্তে¡ও সাবধানতা অবলম্বন করুন। দু’চাকা চালালে হেলমেট অবশ্যই পড়ুন। আপডেট রাখুন আপনার বাহনের বিমার কাগজপত্রও।

স্ব.বা/ রু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *